২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬ আশ্বিন, ১৪২৮

চৌদ্দগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে ৫টি গরুর মৃত্যু, পল্লী বিদ্যুতের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে এক কৃষকের পাঁচটি গরুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (২৬ জুলাই) সকাল সাড়ে নয়টার দিকে উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের বিজয়পুর গ্রামে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকালে বিজয়পুর গ্রামের মৃত: সৈয়দ আলী মজুমদারের ছেলে মো: ফরিদ মজুমদার (৬০) গরুগুলোকে নিয়ে বাড়ীর পাশে নীলক্ষি জলায় ঘাস খাওয়াতে নিয়ে যাচ্ছিলেন। নোয়াবাজার-বিজয়পুর গ্রামের নতুন রাস্তার পাশে গরুগুলো পৌঁছলে হঠাৎ করে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটির ঝুলন্ত তারের সাথে পেঁচিয়ে ঘটনাস্থলেই ওই পাঁচটি গরু মাটিতে লুটিয়ে পড়ে মারা যায়। পাঁচটি গরুর আনুমানিক দাম প্রায় ৪ লাখ টাকা।

গরুর মালিক মো: ফরিদ মজুমদার বলেন, গরুগুলো সামনে ছিল আমি পেছন পেছন যাচ্ছিলাম। আমি কিছু বুঝে উঠার আগেই পল্লী বিদ্যুতের ঝুলে থাকা তারের সাথে স্পৃষ্ট হয়ে পাঁচটি গরু মারা যায়। গরুগুলো ছাড়া আমার আর কোন সম্পদ নেই, আমার সব কিছু শেষ। সরকারি ভাবে কোন অনুদান দিলে আমি উপকৃত হবো।

কলিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান ভিপি মাহবুব হোসেন মজুমদার জানান, রাস্তার পাশে পল্লী বিদ্যুতের খুঁটির তার মেরামতের সময় সঠিক ভাবে মেরামত না করায় ঝুলে থাকা তারে স্পৃষ্ট হয়ে পাঁচটি গরু মারা যায়। এখানে পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের অবহেলা আছে বলে আমি মনে করি। পল্লী বিদ্যুতের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে কৃষকের ক্ষতিপূরণ দাবী করেছি।

এবিষয়ে মিয়া বাজার পল্লী বিদ্যুৎ সাব-জোনাল অফিসের এজিএম আহাম্মদ মশিউল আলম জানান, মিয়াবাজার ফিডারের আওতায় বিজয়পুর এলাকায় “বিজয়পুর-নীলক্ষি কৃষক সমবায় সমিতি” এর পরিচালিত একটি গভীর নলকূপের বিদ্যুৎ সংযোগের তার ওভার লোডের কারনে ক্রসআর্ম থেকে ঝুলে যায়। ঝুলে থাকা তারে স্পৃষ্ট হয়ে পাঁচটি গরু মারা যায়। এটা নিছক একটি দুর্ঘটনা।

আলোকিত চৌদ্দগ্রাম পরিবার

মো. এমরান হোসেন বাপ্পি

নির্বাহী সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৯৯৬২৩৮

মো. বেলাল হোসাইন

বার্তা সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৩ ০৬৫৭২৮

মুহা. ফখরুদ্দীন ইমন

প্রধান প্রতিবেদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৭৮৬০১২