২১ সেপ্টেম্বর, ২০২১, ৬ আশ্বিন, ১৪২৮

চৌদ্দগ্রামে অস্ত্রসহ ১১ ডাকাত আটক

স্টাফ রিপোর্টার: কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে ডাকাতির অভিযোগে বিপুল পরিমাণ দেশীয় অস্ত্র ও ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাস, মোটরসাইকেল সহ ১১ ডাকাতকে আটক করেছে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ। এসময় তাদের কাছ থেকে লুণ্ঠিত নগদ টাকা ও মালামাল উদ্ধার করা হয়। সোমবার দুপুরে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম ও চৌদ্দগ্রাম থানার পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশন) ত্রিনাথ সাহা।

আটককৃতরা হচ্ছে: সদর দক্ষিণ মডেল থানার দিশাবন গ্রামের মৃত জাহাঙ্গীরের ছেলে জহির হোসেন, শহিদুল ইসলামের ছেলে জহিরুল ইসলাম, উত্তর রামপুরের মৃত আবুল হোসেনের ছেলে কামরুল হাসান সবুজ, আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে ফেরদৌস হোসেন, মৃত মাহতাব হোসেনের ছেলে কামাল হোসেন, আব্দুল কুদ্দুসের স্ত্রী মনোয়ারা বেগম, ছেলে বুলেট, মোস্তফাপুর গ্রামের আব্দুল ওহাবের ছেলে নেয়ামত উল্লাহ, শ্রীমন্তপুরের জয়নাল আবেদীনের ছেলে জুয়েল প্রকাশ আকাশ, চৌদ্দগ্রামের উজিরপুর ইউনিয়নের শুয়ারখিল গ্রামের ফারুক আহম্মেদের ছেলে ফাহিম আহম্মেদ ও চাঁদপুরের হাজীগঞ্জের রামপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে সুমন হাসান।

জানা গেছে, রোববার রাত পৌঁনে আটটায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামের বাবুচি বাজার এলাকায় গাড়ির জন্য অপেক্ষায় ছিলেন রংপুর বদরগঞ্জ থানার নাটারাম গ্রামের শাহ আলমের ছেলে শাহীন আলম (৩০)। কিছুক্ষণের মধ্যে কুমিল্লা-ল-১১-০২৩৬ নম্বরের মোটরসাইকেল যোগে তিনজন ডাকাত তার উপর অতর্কিত হামলা করে। ডাকাতরা শাহীনকে হত্যা চেষ্টাসহ নগদ টাকা ও মোবাইল সেট ছিনিয়ে নেয়। এসময় তার চিৎকারে মহাসড়কে ডিউটিতে থাকা পুলিশ ধাওয়া করে ডাকাত জহির হোসেন ও জহিরুল ইসলামকে একটি চাকু, লুণ্ঠিত ব্যাগ ও নগদ টাকাসহ আটক করে।

এসময় অন্যরা পাশ্ববর্তী গ্রামের দিকে পালিয়ে যায়। পরে রাত সাড়ে দশটায় পুলিশ পাশের এলাকায় অভিযান শুরু করে। পলাতক ডাকাত বুলেট অপর সহযোগিদের ফোন করলে তারা ঢাকামেট্রো-চ-১১৩-২২১৭ নম্বরের মাইক্রোবাস যোগে বাবুচি বাজার এলাকার একতা ব্রিকস্ ফিল্ডে গিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। একই সময়ে পুলিশের টিম আত্মগোপনে থাকা ডাকাত বুলেটকে গ্রেফতার করতে অভিযানকালে মহাসড়কের পাশে অর্পিতা ব্রিকস্ ফিল্ডের সামনে ওই মাইক্রোবাসের মুখোমুখি হয়। পুলিশ মাইক্রোবাসটিকে থামাতে বললে তারা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। পরে ধাওয়া করে মাইক্রোবাসে থাকা আটজনসহ ডাকাত বুলেটকে আটক করে পুলিশ।

এসময় তাদের হেফাজতে থাকা পাঁচটি রামদা, দু’টি দেশীয় তৈরি চাইনিজ কুড়াল ও ডাকাতি কাজে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসটি উদ্ধার করা হয়। অস্ত্রসহ ১১ জনকে আটকের ঘটনায় চৌদ্দগ্রাম থানায় মামলা প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

আটককৃত ডাকাতদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ডাকাতি, দস্যুতা, মাদক ও দ্রæত বিচার আইনসহ একাধিক মামলা রয়েছে জানিয়েছে পুলিশ। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বিভিন্ন কৌশলে ডাকাতি, ছিনতাই ও দস্যুতা করে আসছিলো বলে পুলিশের কাছে স্বীকারোক্তি দিয়েছে আটককৃত ডাকাতরা।

আলোকিত চৌদ্দগ্রাম পরিবার

মো. এমরান হোসেন বাপ্পি

নির্বাহী সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৯৯৬২৩৮

মো. বেলাল হোসাইন

বার্তা সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৩ ০৬৫৭২৮

মুহা. ফখরুদ্দীন ইমন

প্রধান প্রতিবেদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৭৮৬০১২