২০ অক্টোবর, ২০২০, ৪ কার্তিক, ১৪২৭
শিরোনাম :
চৌদ্দগ্রামে মানবতার ডাক’র বৃক্ষরোপন ও চারা বিতরণ কর্মসূচী পালন চৌদ্দগ্রামে প্রাইম ফুড এন্ড সুইটস্’র শুভ উদ্বোধন চৌদ্দগ্রামে করপাটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন, সভাপতি আব্দুল মান্নান রতন চৌদ্দগ্রামে শতবর্ষী সরকারি গাছ কেটে নিচ্ছে প্রভাবশালী মাও: ইসমাঈল চৌদ্দগ্রামে বিয়ের প্রলোভনে যুবতীকে ধর্ষণ, ধর্ষক গ্রেফতার চৌদ্দগ্রামে অপরাধ জগতের হোতা মেম্বার বজলুর রহমান জেলহাজতে চৌদ্দগ্রামে ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত শিক্ষক তারেক গ্রেফতার, জেলহাজতে প্রেরণ চৌদ্দগ্রামে জাতীয় শ্রমিক লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন ও আলোচনা সভা চৌদ্দগ্রামে ছেলের হাতে মা খুন, ঘাতক আটক চৌদ্দগ্রামে সামাজিক বিরোধের জেরে শিক্ষকের উপর হামলা

খৈড়াছড়া ঝর্ণা ও মহামায়ায় দূর্বার বাংলা’র দুঃসাহসী অভিযাত্রা

মুহা. ফখরুদ্দীন ইমন: কুমিল্লার ভ্রমণ প্রেমীদের প্রিয় সংগঠন “দূর্বার বাংলা” কর্তৃক আয়োজিত “আনন্দ ভ্রমণ-২০১৯” গত মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) অনুষ্ঠিত হয়েছে। দূর্বার বাংলা’র আহবায়ক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. এমরান হোসেন বাপ্পির সার্বিক তত্ত্বাবধায়নে অনুষ্ঠিত এবারের ট্যুরের গন্তব্য স্থান ছিল চট্টগ্রামের মীরসরাই উপজেলার প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপরূপ জলপ্রপাত “খৈয়াছড়া ঝর্ণা” ও মহামায়া লেক।

ভ্রমণের দিন ভোরে কুমিল্লা থেকে চারটি মাইক্রো যোগে অর্ধশতাধিক অভিযাত্রী নিয়ে যাত্রা শুরু করে চৌদ্দগ্রাম বাজারস্থ “আমানত হোটেলে” যাত্রা বিরতি দেয়। এখানে সকালের নাস্তা গ্রহণ শেষে “দূর্বার বাংলার” সদস্যরা পূণরায় অভিযাত্রা শুরু করে নির্দিষ্ট গন্তব্যের উদ্দেশ্যে। কখনো মেঘ কখনো বৃষ্টি এমন পরিবেশে প্রায় এক ঘন্টার অভিযাত্রা শেষে “দূর্বার বাংলার” গাড়ি বহর তার প্রথম গন্তব্য খৈয়াছড়া ঝর্ণা এলাকায় পৌঁছতে সক্ষম হয়। গাড়ী থেকে নেমে “দূর্বার বাংলার” টীম অরেঞ্জ” সদস্যরা পায়ে হেঁটে ঝর্ণার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। দূর্গম গিরিপথ ও পিচ্ছিল পাহাড়ী ঝর্ণা ধারার কন্টক পথ পাড়ি দিয়ে বেলা এগারটায় সকল বাধা-বিপত্তি কাটিয়ে দূর্বার বাংলার সদস্যরা খৈয়াছড়া ঝর্ণার মূল কেন্দ্র বিন্দুতে পৌঁছতে সক্ষম হয়।

এসময় অল্প-বিস্তর জায়গায় বিস্তৃত পাহাড়ী কান্নার অলৌকিক দৃশ্য অবলোকন, ভ্রমণের আনন্দঘন স্মৃতি ধরে রাখতে একক, গ্রুপ ছবি ও সেলফি তোলায় ব্যস্ত ছিল “দূর্বার বাংলার” সদস্যরা। ঝর্ণার স্বচ্ছ পানিতে বহুল প্রতিক্ষিত ঝর্ণাস্নান ছিল বেশ আকর্ষনীয়, আনন্দদায়ক ও তৃপ্তিময়। প্রায় দুই ঘন্টার ঝর্ণা পরিদর্শনকালীন সময় সমস্ত এলাকা “দূর্বার বাংলার” সদস্যরা মুখরিত করে রেখেছিল। সেখানে অরেঞ্জ রঙের টি-শার্ট ছাড়া যেন কিছুই দেখা যাচ্ছিল না তখন। জায়গাটি কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গিয়েছিল “টিম অরেঞ্জের” পদচারণায়।

এরপর বেলা দুইটায় ভ্রমণ টিমের সিপাহসালার সাংবাদিক এমরান হোসেন বাপ্পির নির্দেশে ও তার নেতৃত্বে “দূর্বার বাংলার” দুঃসাহসী সদস্যরা জলপ্রপাত থেকে ফিরতি যাত্রা শুরু করে। খৈয়াছড়া ‘শাওন হোটেলে’ দুপুরের খাওয়া শেষে মহামায়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে “দূর্বার বাংলা” পরিবার। মহামায়ায় পৌঁছে প্রথমে কিছু গ্রুপ ছবি তুলে দূর্বার বাংলার দূরন্ত সদস্যরা। পরে বরাবরের মত প্রত্যাশিত সেই মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সাংকৃতিক প্রতিযোগিতা শুরু হয়। এসময় দূর্বার বাংলার সদস্য, বিভিন্ন এলাকা থেকে মহামায়ায় আগত পর্যটক ও স্থানীয় দর্শকরা মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি বেশ মনোযোগের সাথে করতালিমুখর পরিবেশে উপভোগ করে থাকেন। পরে সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন দূর্বার বাংলার আহবায়ক ও নির্বাহী পরিষদের সদস্যরা।

সাংস্কৃতিক পর্ব শেষে আসে ভ্রমণের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও বহুল কাঙ্খিত সেই লটারী পর্ব। জমকালো ও আনন্দঘন পরিবেশে লটারী ড্র অনুষ্ঠিত হয়। লটারী ড্র শেষে বিজয়ীদের মাঝে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কারসহ সর্বমোট ১৫টি আকর্ষণীয় পুরস্কার তুলে দেওয়া হয়। পুরস্কার বিতরণ শেষে “দূর্বার বাংলা” পরিবার তাদের সকল কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক সমাপ্তি ঘোষনা করে সকল ডেলিগেটদের নিয়ে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় মহামায়া থেকে ফিরতি যাত্রা শুরু করে। আসার পথে ফেনী মহিপাল এলাকায় যাত্রা বিরতি করে এবং ডেলিগেটদের মাঝে সান্ধ্যকালীন নাস্তা সরবরাহ করা হয়। নাস্তা ভোজন শেষে ফের যাত্রা শুরু করে। অবশেষে রাত নয়টায় চৌদ্দগ্রাম এবং সাড়ে নয়টায় সর্বশেষ গন্তব্য কুমিল্লায় পৌঁছে “দূর্বার বাংলার” টিম অরেঞ্জ।

এদিকে “দূর্বার বাংলা” এর আহবায়ক বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মো. এমরান হোসেন বাপ্পি আনন্দ ভ্রমণে অংশগ্রহণকারী “দূর্বার বাংলা” পরিবারের সকল ডেলিগেটকে ভ্রমণে অংশগ্রহণ,তাদের আন্তরিক সহযোগিতা ও সহানুভূতির জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে সকলের সার্বিক মঙ্গল কামনা করেন।

পরে তিনি “দূর্বার বাংলা” এর যুগ্ম আহবায়ক মো. মোশাররফ হোসেন, পেয়ার আহমেদ, আব্দুর রব লাভলু, আব্দুল খালেক পরশ, মো. হাবিব উল্লাহ্, সোহেল, তাহমিনা আক্তার মিলি, নির্বাহী সদস্য সাংবাদিক মুহা. ফখরুদ্দীন ইমন, ডা. মো. ইউসুফ হোসাইন সুমন, মো. ইসরাফিল মোল্লা, খায়রুল ইসলাম, রিয়াদ হোসাইন, মনির হোসেন, এমদাদ হোসেনসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে ট্যুর বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে তাদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও সার্বিক সহযোগিতার জন্য বিশেষ ধন্যবাদ জানান।

আলোকিত চৌদ্দগ্রাম পরিবার

মো. এমরান হোসেন বাপ্পি

নির্বাহী সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৯৯৬২৩৮

মো. বেলাল হোসাইন

বার্তা সম্পাদক
মোবাইল: ০১৮১৩ ০৬৫৭২৮

মুহা. ফখরুদ্দীন ইমন

প্রধান প্রতিবেদক
মোবাইল: ০১৮১৯ ৭৮৬০১২